Advertisements


পরিবর্তন হলো তাপপ্রবাহ দাবানল ১ এর সময়সীমা

পরিবর্তন হলো তাপপ্রবাহ দাবানল ১ এর সময়সীমা। এবং সেইসঙ্গে অনেকের করা এপ্রিল মাসের শেষ দিকে সিলেট এর বন্যার পূর্বাভাস দূর হয়েগেলো এবং পরিবর্তন হলো তাপপ্রবাহ দাবানল ১ এর তীব্রতা ও মানচিত্র। তাপপ্রবাহ দাবানল এর তীব্রতা ও স্থায়িত্ব আরও বৃদ্ধি পেতেপারে।

তাপপ্রবাহ দাবানল ১ ( ১২ টু ৩০ শে এপ্রিল ২০২৩)

তীব্র তাপপ্রবাহ : যেখানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০- ৪৪° সেলসিয়াস পর্যন্ত যেতেপারে, গাড়ো লাল সূর্য চিহ্নিত এলাকা, যেমন সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, যশোর, নড়াইল, মাগুরা, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, পাবনা, নাটোর, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, জয়পুরহাট, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, গাইবান্ধা, দিনাজপুর, রংপুর, ঠাকুরগাঁও ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকা।

Advertisements


পশ্চিমবঙ্গ এর অনেক এলাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা +৪৫° সেলসিয়াস এর উপরে চলে যেতেপারে ডাবল লাল চিহ্নিত সূর্যের রং করা এলাকায়

মাঝারি তাপপ্রবাহ : যেখানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৮-৪০° সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠে যেতেপারে, হালকা লাল সূর্য চিহ্নিত এলাকা,  যেমন বরগুনা, পটুয়াখালী, মাদারীপুর, মুন্সীগঞ্জ, ঢাকা, মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, জামালপুর, শেরপুর, , নরসিংদী, শরিয়তপুর, চাঁদপুর, কুমিল্লা, লন্সীপুর, বরিশাল, ঝালকাঠি, ভোলা রাঙ্গামাটি, চট্টগ্রাম, ফেণী, খাগড়াছড়ি, কক্সবাজার বান্দরবান, কুমিল্লা  ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকা।

মৃদু তাপপ্রবাহ এলাকা : নিল সূর্য রং চিহ্নিত এলাকা। দেশের সমগ্র উপকূল, ব্রাম্মনবাড়িয়া  এর পার্শ্ববর্তী এলাকা, এখানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬-৩৮°সে. পর্যন্ত যেতেপারে।

Advertisements

স্বাভাবিক  এলাকা : সিলেট বিভাগের সকল জেলা, ময়মনসিংহ বিভাগ সম্পুর্ন  ও চট্টগ্রাম বিভাগের উপকুল, এখানে তাপমাত্রা স্বাভাবিক ও ২৫ ই এপ্রিল এরপর হতে সিলেট বিভাগে ও ময়মনসিংহ বিভাগের পূর্বঅঞ্চলে  নিয়মিত বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে তবে তা পরিমানে কম। সবুজ রং চিহ্নিত সূর্যের রং। এখানে তাপমাত্রা  +৩২-৩৬ ° সেলসিয়াস পর্যন্ত থাকতেপারে।

ও দেশের বাকি এলাকায় আকস্মিকভাবে মাঝেমধ্যে কিছুটা বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। যেটা তাপপ্রবাহ হ্রাসে ভূমিকা রাখবে না। চিত্র দেখে আপনার এলাকার অবস্থা বুঝেনিন। 
আপডেট : ১২ ই এপ্রিল দুপুর ২ টা বেজে ৫৫ মিনিটে।

 

Advertisements

Advertisements


Advertisements