Advertisements


গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়ার বিশেষ প্রতিবেদন – প্রথম পর্ব

CFS Model: এপ্রিল মাসের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় কিছুটা বেশি
CFS Model: Temperature Anomaly of April

গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়ার বিশেষ প্রতিবেদন – প্রথম পর্ব

আজকের বিষয় : তাপপ্রবাহ ও কালবৈশাখী ঝড় কেমন থাকতে পারে?
প্রতিবেদন সময়কাল : মার্চ হতে জুন ২০২৪ পর্যন্ত।

গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়ার বিশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী তাপপ্রবাহ কেমন থাকতে পারে এবছর?

আর কিছুদিন পরই শুরু হতেযাচ্ছে প্রচন্ড গ্রীষ্মকাল, আর এইবছর গ্রীষ্মকালে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠতে পারে বিগত কয়েক দশকের ভেতরে সবচেয়ে বেশি। গতবছর যেখানে আমাদের দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয় +43° সেলসিয়াস। সেখানে এইবছর মে মাসে তা সর্বোচ্চ ৪২-৪৫° সেলসিয়াস এর ঘরে উঠে যেতেপারে।

চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ঝিনাইদহ, যশোর, নড়াইল, খুলনা, গোপালগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া, রাজবাড়ী, নাটোর কুষ্টিয়া, রংপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, নওগাঁ, মেহেরপুর, ফরিদপুর, ঢাকা, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় এলাকায় এইবছর ভয়াবহ তাপপ্রবাহ বয়ে যেতেপারে।


যেখানে, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী জেলা ও এর আশেপাশের এলাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা +৪০° থেকে +৪৫° সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠে যেতেপারে।

CFS Model: এপ্রিল মাসের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় কিছুটা বেশি
CFS Model: Temperature Anomaly of May

কোন কোন সময় তাপ প্রবাহ হতে পারে এই বছর?

মার্চের ২০ থেকে ২৫ তারিখের ভেতরে একটি মাঝারি তাপপ্রবাহ ( +৩৮°) খুলনা ও রাজশাহী বিভাগ। এছাড়া সম্পুর্ন এপ্রিল জুড়ে মাঝারি থেকে তীব্র তাপপ্রবাহ (+৩৮° থেকে +৪৩° সেলসিয়াস) খুলনা, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অনেক এলাকা ও ঢাকা, বরিশাল ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু এলাকা।

মে মাসের মাঝামাঝি অতি তীব্র তাপপ্রবাহ ( +৪৫°) এর আশেপাশে, খুলনা, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগ।
মোস্ট অব চুয়াডাঙ্গা, যশোর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, নাটোর, কুষ্টিয়া ও এর পার্শ্ববর্তী জেলা। ও জুন মাসের প্রথমে ও মাঝে প্রায় অতি তীব্র তাপপ্রবাহ ( +৪২ হতে +৪৪°) এর আশেপাশে সেই খুলনা, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অনেক এলাকা।

CFS Model: গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়ার বিশেষ প্রতিবেদন
CFS Model: Temperature Anomaly of May

এবছর সবচেয়ে কম তাপ প্রবাহ কোথায়?

দেশের সকল উপকূলীয় এলাকা ও চট্টগ্রাম এবং সিলেট বিভাগে মৃদু তাপপ্রবাহ (+৩৬°) এর আশেপাশে হলেও, বাতাসে প্রচুর জলীয়বাষ্প থাকার দরুন এইসকল এলাকায় প্রচুর ভ্যাপসা গরম অনুভূতি হবে।

পশ্চিমবঙ্গে ও ভারতে তাপ প্রবাহ কেমন থাকবে?

মানে, ধারনা করা হচ্ছে এইবছর এর গরমকাল গতবছর অপেক্ষা আরও ভয়াবহ হতেযাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গ, ইন্ডিয়া অংশে তাপমাত্রা আরও বেশি ( +৪৭°) পর্যন্ত যেতেপারে কৃষ্ণনগর, ঝাড়খন্ড, বারাসাত, বাকুঁড়া ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায়।
উল্লেখ্যযোগ্য তাপপ্রবাহ গুলো হলো, তাপপ্রবাহ মাতাল, তাপপ্রবাহ অগ্নি, তাপপ্রবাহ দাবানল ইত্যাদি।

সর্বশেষ সকল আবহাওয়ার পূর্বাভাস দেখুন এখানে!! 

এবছর কালবৈশাখী কেমন  থাকতে পারে?

কালবৈশাখী ঝড় : তাপপ্রবাহের অবস্থা দেখে আপনারা বুঝতে পেরেছেন যে এইবছর কালবৈশাখী ঝড় হয়তোবা কম হতেপারে, হ্যাঁ আসলেই তাই, তবে কালবৈশাখী ঝড় কম হলেও চলতি বছর অধিকাংশ কালবৈশাখী ঝড় হতেপারে মারাক্তক।
তাপপ্রবাহ বেশি থাকায় এইবছর কালবৈশাখী ঝড়ের তীব্রতা বেশি হতেপারে।

বিশেষ করে রাজশাহী, খুলনা ও ঢাকা বিভাগের অনেক এলাকায় ও রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু এলাকায় তীব্র কালবৈশাখী ঝড় হতেপারে।

যা ঘন্টায় ৮০ থেকে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতেপারে।
যশোর, খুলনা, ঝিনাইদহ, নাটোর, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, কুষ্টিয়া, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুর, ফরিদপুর, মাদারীপুর, পাবনা, বগুড়া, সাতক্ষীরা, কলকাতা, মেদিনীপুর, ২৪ পরগণা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকা তীব্র কালবৈশাখীর বেশি ঝুকিতে আছে।

কালবৈশাখী ফরমেশন : মার্চের শেষ সপ্তাহ, এপ্রিল এর মাঝামাঝি ও মে মাসের মাঝামাঝি ও জুনের প্রথম সপ্তাহে। ও আকস্মিকভাবে কিছুটা আছে।

ধন্যবাদ পোস্ট টি পড়ার জন্য, আরও জানার জন্য নিয়মিত আমাদের সাথে থাকুন।
সবচেয়ে নির্ভরশীল আবহাওয়ার তথ্য পেতে আপনারা দেশের সরকারি আবহাওয়া পেজ ও ওয়েবসাইট নজর রাখুন।
ধন্যবাদ : Bangladesh Weather Observation Team (BWOT)

Advertisements


Advertisements